আজ কিছুক্ষন আগেই ফেসবুক লাইভে আসেন কলকাতা তথা বাংলার অন‍্যতম পরিচিত মূখ, নাট‍্য ব‍্যাক্তিত্ব তথা অভিনেতা অমিত সাহা। সদাহাস্যোজ্জ্বল অমিত বাবুর মুখে তখনও বেশ আতঙ্কের ছাপ। গতকালই শেষ হয়েছে ঘটা করে আয়োজন করা কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব ২০২২। আর আজ ২৩শেই আক্রান্ত বাংলার এক জনপ্রিয় অভিনেতা।

অমিত বাবু ভিডিও তে জানান, তিনি ও তার নাটকের দলের সদস‍্যরা মিলে দীর্ঘ প্রায় ১ মাস ধরে একটি নাট‍্য উৎসবের আয়োজন করেন। ২৪ ও ২৫ শে ডিসেম্বর এই দুদিন, বেলেঘাটার রাজা রাজেন্দ্র লাল রোডে লাগোয়া একটি মাঠে আয়োজন করেছিলেন। এই উৎসব আয়োজন করতে স্থানীয় মানুষের থেকে ১০/১৫ টাকা অনুদান সংগ্রহ করে, লিফলেট্ ছাপিয়ে সকল অধিবাসীদের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।

লিখিত ভাবে জানিয়েছিলেন স্থানীয় থানা এবং তৃনমূল কাউন্সিলর অলোকানন্দা দাস কেও। কিন্তু আজ ২৩ তারিখে তিনি জানতে পারেন অনুষ্ঠান স্থলেই তারস্বরে মাইক বাজিয়ে “কেক উৎসব” হচ্ছে। মাইকের আওয়াজে নাটকের অনুষ্ঠানে অসুবিধা হবে সেই কথা ভেবে অমিতবাবু ও তার দলের দুএক জন সদস‍্য‍্ কথা বলতে গিয়েছিলেন পুর প্রতিনিধির কাছে, অফিসে পুর প্রতিনিধি না থাকায় তারা অনুষ্ঠান স্থলে যান কথা বলতে, যদি নাটকের দিন টা পিছিয়ে অনুষ্ঠান টি করা যায়। কিন্তু এখানেই ঘটে যায় বিপত্তি।

অমিত বাবু জানান, তিনি বা তার নাটকের দলের সদস‍্যরা কোন কিছু বলার আগেই তাদের ওপর চড়াও হন পুর-প্রতিনিধি অলোকানন্দা দাসের বাবা অলোক দাস। অমিত বাবু সহ তার নাটকের দলের অন‍্য সদস‍্যদের চড় থাপ্পড় মারতে মারতে মাঠ থেকে বের করেদেন অভিযুক্ত অলোক দাস।

আমরা জানতে চেয়েছিলাম, যে নাটকটি কি কোন কারনে রাজ‍্য সরকার বিরোধী বিষয়ে ছিল? অমিত বাবু জানান, একেবারেই নয় উপরন্তু কেন্দ্রীয় সরকার বিরোধী বলা যেতে পারে।

আজ কেন্দ্রীয় সরকারের মাৎসন‍্যায়েই রাজ‍্য সরকার বেশ কঠিন পরিস্থিতিতে রয়েছে। এবং এখান থেকে প্রমানিত হয় বর্তমান তৃনমূল কংগ্রেসে এই সব “বেনোজল” এর জন‍্যই দলের এই অবস্থা। আমরা আশাকরি রাজ‍্য সরকার এই বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেবেন। কিন্তু বারং বার এই নাট‍্য জগতের ওপর আঘাত আগামী দিনে এক বৃহত্তর আন্দোলন সৃষ্টি করবে তা খুব সহজেই অনুমান করা যায়।