নদিয়ার রানাঘাটে ধরা পড়লো এমনই এক চোর। বেশ কিছুদিন ধরেই এলাকার বহু বাড়ি থেকে চুরি যাচ্ছিল মহিলাদের অন্তর্বাস। এরকমই এক অদ্ভুত ঘটনার সাক্ষী হয়ে থাকল রানাঘাট বাসী। স্থানীয় সুত্রে জানা যায় বছর দুয়েক ধরে এই ঘটনা চলছিল। এলাকার মহিলারা তাদের অন্তর্বাস কেচে উঠনে, ছাদে বা বারান্দায় শুকতে দিলে তার কিছুক্ষনের মধেয়ই চুরি হয়ে যেত। অবাক করা বিষয় হল এই আর অন্য কোন জামা কাপড় পাশে শুকতে দেওয়া থাকলেও তা চুরি যেত না । বা বাড়ির বহু মুল্যবান জিনিস ও চুরি যেত না । চোর সুধুমাত্র মহিলা দের অন্তর্বাস চুরি করতো। কোন ভাবেই এই চুরির কোন হদিশ পাওয়া যাচ্ছিল না ।

গতকাল ধরা পরেন এই চোর। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মহিলা জানান , তিনি হঠাত করেই খেয়াল করেন তার শুকতে দেওয়া অন্তর্বাস নিয়ে এক যুবক পালিয়ে যাচ্ছেন। চিৎকার চেঁচামিচি করতেই স্থানীয় লোকজন ধাওয়া করে চোর কে ধরে ফেলেন।

স্থানীয় মানুষ চোর কে পুলিশের হাতে তুলে দেন এবং পুলিশ জেরা করে জানতে পারে – ধৃত ব্যাক্তির এর নাম সত্যজিৎ দাস। তিনি নিজেও এই চুরির কথা স্বীকার করে নেন। পুলিশ সত্যজিৎ এর বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে এক বস্তা মহিলাদের অন্তর্বাস পেয়েছেন। পুলিশের ধারনা ধৃত সত্যজিৎ মানসিক বিকার গ্রস্ত এছাড়া পুলিশ তার বাড়ি থেকে একটি কম্পুটার থেকে এলাকার বেশ কিছু মহিলার ছবি সুপার ইম্পজ করে নেট এ বিক্রি করার তথ্যও পেয়েছেন।